মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

আশা,লালমনিরহাট জেলা কার্যালয়

 

আশা[ASA]

প্রধান কার্যালয়: আশা টাওয়ার, ১৪,১৫ তলা, ২৩/৩, বীর উত্তম এ.এন.এম. নুরজ্জামান সড়ক, শ্যামলী, মোহাম্মপুর, ঢাকা-১২০৭

Web: www.asa.org.bd , E-mail: asa@asabd.org, ‡dvb t 8119828, d¨v· t 880-2-9121861,

 

 

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট মহোদয়ের পরিচিতিঃ

Text Box:  আশারপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট মোঃ সফিকুল হক চৌধুরী, ১৯৪৯ইং সালে হবিগঞ্জ জেলার চুনার“ঘাট থানার নরপতি গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত— পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজ বিজ্ঞানে বি. এ (সম্মান) সহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। উলে­খ্য, বিসিএস ১৯৭৩ব্যাচের প্রবেশনারী কর্মকর্তা হিসেবে প্রশি¶ণ প্রাপ্ত হয়েও চাকুরীতে যোগদান না করে দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায় ও দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে আত্মনিয়োগ করেন এবং দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎউন্নয়ন কর্মসূচীতে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

 

পটভূমিকা:

১৯৭৮ সালের মার্চ মাসে মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলা/থানাধীন টেপরা নামক স্থান থেকে আশার কার্যক্রম শুর“ হয়। সমাজের দরিদ্র, অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায় ও তাদেরকে সচেতন করার লক্ষ্যনিয়ে আশার সাংগঠনিক কার্যক্রম শুর“ করেন জনাব মোঃ সফিকুল হক চৌধুরী। সে সময় তিনি সমমনা বেশ কয়েকজন উন্নয়ন কর্মী নিয়ে আশা প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

প্রচলিত গতানুগতিক উন্নয়ন ধারার সীমাবদ্ধতাগুলো অতিক্রমের জন্য একটি বিকল্প উন্নয়ন ধারা অনুসন্ধানের ইচ্ছা থেকেই মূলতঃ আশার জন্ম। জন্ম লগ্ন থেকেআশাবিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম বৃহৎআত্মনির্ভর ক্ষুদ্র ঋনদানকারী প্রতিষ্ঠান তথা Micro finance Institute (MFI)হিসেবে দেশ বিদেশে সমাদৃত।

সময়ের দাবী ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর চাহিদার সাথে সংগতি রেখে ১৯৯২ সনে সংস্থার কর্মপদ্ধতি ও কর্মকান্ডের ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়। তখন থেকে সঞ্চয় ও ঋণ কার্যক্রমের সেবার দ্বারা দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে (বিশেষ করে মহিলা) অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষমতায়নেরমাধ্যমে আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলা এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সেবার বিনিময়ে অর্জিত সেবামূল্য থেকে সংস্থাকে স্থায়িত্বশীল ও টেকসই করার দৃঢ় প্রত্যয় এবং অভিপ্রায় নিয়ে নতুন ভাবে কার্যক্রম শুর“ করে।

ক্ষুদ্র ঋণে আশার গৌরবময় অর্জন ও নন্দিত সফলতার কারণে আজ আশার মডেলকে অনুসরণ করা হচ্ছে বিশ্বের অনেক দেশে। আশার সহজ সরল, নমনীয় এবং ব্যয় সাশ্রয়ী নীতিই এই সফলতা অর্জনের মূল চাবি কাঠি। বিদেশী অনুদানহীন সস্পূর্ন নিজ¯^ অর্থায়নে আত্মনির্ভরশীল টেকসই উন্নয়ন মডেল হিসাবে আশাবিশ্বে সমাদৃত হচ্ছে।

 

বিদেশে আশাউন্নয়ন মডেল:আশারউদ্ভাবন মূলক ক্ষুদ্রঋণ মডেল পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অনুসৃত হচ্ছে, যা ইতোমধ্যেই অর্জন করেছে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। যে সকল দেশে আশারমডেলে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে তা হলো আফগানিস্থান, ইথিওপিয়া, ইন্দোনেশিয়া, লাওস, নাইজেরিয়া, ফিলিপাইন, পাকিস্তান, কম্বোডিয়া, ভারত, জর্দান, মায়ানমার, ঘানা ও পেরু।

 

বাংলাদেশে আশামডেল:বাংলাদেশে অনেক সংস্থা আশারমডেলে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বাংলাদেশে আশার১৯টি পার্টনার সংস্থা রয়েছে।


                      

 

        

ক.      জয়েন্ট স্টক কোম্পানীর নিবন্ধন নম্বর- of1978-1979, তারিখ- ১৭/০৫/১৯৭৯।

         খ.    এনজিও বিষয়ক ব্যুরো নিবন্ধন নম্বর- DSW/FDO/R-120, তারিখ- ১৪/০১/১৯৮২ইং।

         ঘ.     মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি সনদ নম্বর- ০০৪৭০-০০৫৩৮-০০১০০, তারিখ- ১৫/০১/২০০৮ ইং। (নবায়নকৃত)

 

 

 

তহবিলের উৎস:আশারঅন্যতম প্রধান একটি বৈশিষ্ট্য হলো, এটি সম্পুর্ণ আত্মনির্ভরশীল প্রতিষ্ঠান। সম্পুর্ণ দেশীয় উৎস থেকে সুদে-আসলে ফেরতযোগ্য তহবিল আহরণ করেও আশাতার সমগ্র কর্মসূচী পরিচালনা করছে। ব্যয় সংকোচন নীতি অনুসরণ করে নুন্যতম ব্যয়ে যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করে উদ্বৃত্ত সৃষ্টির মাধ্যমে নিজস্বতহবিল সৃষ্টি এবং সদস্যের সঞ্চয়ই হলোআশারতহবিলের অন্যতম উৎস।

 

 

 

 

 

 

লালমনিরহাট জেলার পরিচিতি        

 

        আশা

 

 

লালমনিরহাট জেলা কার্যালয়,

          বালাটারী, এয়ারপোর্ট রোড (সার্কিট হাউজ সংলগ্ন),লালমনিরহাট।

             ইমেইলt lalmonirhat@asabd.org,ফোনt ০৫৯১-৬১১৬১,

 

 

                          জেলা ব্যবস্থাপক:মোঃমোশারফ হোসেন

                  ফোন: ০১৭১৬৬৯৭৭২৬।

 

 

Down Arrow: প্রোগ্রামসেকশন

 

 

 

 

 

 

 

 


                                                                        

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

চিত্রঃ জেলা কাঠামো।

 

জেলার কাঠামোঃ লালমনিরহাট জেলার ৫টি উপজেলায় আশার ৩৩টি ব্রাঞ্চের কার্যক্রম চলমান আছে। প্রত্যেকটি আঞ্চলিক কার্যালয়ের অধীনে ৬/৭টি ব্রাঞ্চ রয়েছে।

 

ব্রাঞ্চ কাঠামোঃ একটি ব্রাঞ্চে একজন ব্রাঞ্চ ম্যানেজার এর অধীনে একজন সহকারী ব্রাঞ্চ ম্যানেজার, ৪ থেকে ৬ জন লোন অফিসার, ও একজন পিয়ন কাম কুক আছে। একটি ব্রাঞ্চে সাধারণত ১৫০০ থেকে ২৫০০ পর্যš— উপকারভোগী সদস্য থাকে।

 

 

 

Flowchart: Sequential Access Storage: ** ক্ষুদ্র ঋন সেবা।
** ক্ষুদ্র সঞ্চয় সেবা।
** ক্ষুদ্র বীমা সেবা ।
** শিক্ষা সেবা।
** প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা।|
** ফরেন রেমিটেন্স সার্ভিস। 

আশার সেবা সমূহ :

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ক্ষুদ্র ঋণ সেবা:

 

 

আশা লালমনিরহাট জেলায় কার্যক্রম শুরু করে ০১/০৬/১৯৯৭ইং সাল হতে। আশা সমাজের দরিদ্র, অসহায় ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের মাঝে ৩৪ টি ব্রাঞ্চের মাধ্যমে প্রায় ৬০ হাজার জন সদস্যকে সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা দিয়ে তাদেরকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করার মধ্য দিয়ে অধিকার আদায় ও তাদের সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মতাবান করার লক্ষ্যেনিয়ে কাজ করছে। একজন সদস্য কোন ভর্তি ফি ছাড়াই নুন্যতম ১০ টাকা সঞ্চয় জমা করে সদস্য পদ লাভ করে এবং পরবর্তী সপ্তাহেই ঋণ গ্রহণ করে থাকে।

 

 

 

 

 

 

** প্রাথমিক ঋণ:ভুমিহীন হত দরিদ্র, কৃষি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সদস্যরা এই ঋণের অন্তভুক্ত। প্রথম দফায় ৮ - ২০ হাজার টাকা দেয়া হয়। ৫০ হাজার টাকা পর্যš— এই ঋণের সিলিং নির্ধারিত। প্রতি দফায় ২-৫ হাজার টাকা, সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পর্যš— বৃদ্ধি করা হয়। ঋণের মেয়াদ ৪,৬, ১২ মাস। কিস্তি সাপ্তাহিক ও মাসিক উভয়ই চলমান। প্রকল্প বিবেচনায় ৪ মাস ও ৬ মাস মেয়াদী এককালীন পরিশোধের শর্তেও ঋণ দেয়া হয়।

 

** বিশেষ ঋণ :ব্যাপক ভিত্তিক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও ব্যবসা প্রসারের মাধ্যমে গ্রহীতাদের আয় বৃদ্ধি এবং ¯^-কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বেকারত্ব হ্রাস, জাতীয় উৎপাদনে অবদান রাখা ও দারিদ্র্যতা হ্রাস করা এই ঋণের লক্ষ্য । এই ঋণের পরিমাণ ৫১ হাজার থেকে ১০ ল¶ টাকা পর্যš—। প্রথম দফায় প্রকল্পের সম্ভাব্যতা বিবেচনায় ঋণের পরিমাণ নির্ধারণ হয়। এই ঋণের মেয়াদ ১২ মাস, ১৮ মাস ও ২৪ মাস। কিস্তিসারাণত মাসিক। তবে প্রকল্পের ধরণ অনুযায়ী সাপ্তাহিকও হতে পারে।

 

** শিক্ষাঋণ :আশার সদস্যদের ছেলে মেয়ের লেখা পড়ার (স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, পরীক্ষার ফরম পূরণ, বই কেনা) জন্য শিক্ষাঋণ দেয়া হয়। একজন সদস্যর প্রাথমিক ঋণ থাকা অবস্থায়ই মধ্যবর্তী যে কোন সময়ে প্রয়োজন ভিত্তিক অতিরিক্ত এই শিক্ষাঋণ নিতে পারে। এই ঋণের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা।

 

 

**সার্ভিস চার্জ হার:মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি কর্তৃক নির্ধারিত হার ক্রমহ্রাসমান সর্বোচ্চ ২৭%।

 

                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                         

  এক নজরে আশা-লালমনিরহাট জেলার পোর্ট ফলিও সেপ্টেম্বর ২০১৩পর্যন্ত    

মোট ব্রাঞ্চের সংখ্যা         ঃ   ৩২টি।

মোট কর্মী সংখ্যা          ঃ   ২২৫ জন।

উপজেলার সংখ্যা           ঃ   ৫টি।

মোট দলের সংখ্যা          ঃ   ২৮১১টি।

মোট সঞ্চয়ী জন           ঃপ্রায় ৫৫ হাজার জন।

সঞ্চয় স্থিতি              ঃপ্রায় ২৬কোটি টাকা

বর্তমান ঋণ গ্রহীতার সংখ্যা   ঃ   প্রায় ৫৪হাজার জন।

ঋণ স্থিতি (আসল)        ঃ   প্রায় ৬৪কোটি টাকা ।

 জেলায় বিতরণকৃতচলমানঋণ (আসল)    ঃ  প্রায় ১১৫কোটি টাকা। 

ঋণ আদায়ের হার          ঃ   ৯৬.৪৩%

 

 

ক্ষুদ্র সঞ্চয় সেবা:

 

সাপ্তাহিক/মাসিক সঞ্চয় জমাঃ - আশারসদস্য হওয়ার পর সকল সদস্যদের কাছ থেকে নির্ধারিত সর্বনিম্ন হারে বাধ্যতামূলকভাবে সঞ্চয় জমা গ্রহণ করা হয়। তবে নির্ধারিত সর্বনিম্ন সঞ্চয়ের সাথে সদস্যগণ তাদের সামর্থ এবং ইচ্ছানুযায়ী সেচ্ছায় যে কোন পরিমাণে সঞ্চয় জমা করতে পারেন। একজন সদস্য নিজ¯^ চলমান ঋণের বিপরীতে জমাকৃত সঞ্চয়ের একটি নির্ধারিত অংশ জমা রেখে অবশিষ্ট সঞ্চয় উত্তোলন করতে পারে।

** দীর্ঘমেয়াদী সঞ্চয় (এলটিএস):- আশা সদস্যদের জন্য ৫ বছর মেয়াদ হলে বার্ষিক ৯% এবং ১০ বছর মেয়াদ হলে বার্ষিক ১২% হার  সুদে মাসিক ৫০-১০০০ (৫০ এর গুনিতক) পর্যš— কিস্তিতেদীর্ঘ মেয়াদী সঞ্চয় প্রকল্প চালু করেছে।

 

 ক্ষুদ্রবীমা সেবাঃ

 

ক. ঋণ বীমাঃ ঋণ গ্রহীতা সদস্য ঋণ গ্রহণ কালে প্রতি হাজারে ১০ টাকা হারে ঋণ বীমা প্রিমিয়াম প্রদান করেন। ঋণ বীমা গ্রহণকারী সদস্য মারা গেলে ঋণের অবশিষ্ট টাকা মওকুফ করা হয়।।

 

খ.মূলধন সঞ্চয়তহবিল (জীবন বীমা):সদস্য মূলধন সঞ্চয় তহবিল” নামে ক্ষুদ্রঋণের সদস্যদের জন্য আশা জীবন বীমা চালু করেছে। আট বছর মেয়াদী এই বীমার প্রিমিয়াম সাপ্তাহিক ১০ টাকা অথবা মাসিক ৫০ টাকা। সদস্য মূল ধন সঞ্চয় তহবিল(জীবন বীমা) চালু থাকার পর সদস্যের মৃত্যু হলে তার বৈধ উত্তরাধিকারী কে জমাকৃত প্রিমিয়ামের দ্বিগুনটাকা প্রদান করা হয়। মৃত্যু না হলে মেয়াদ শেষে৮%সুদ ও জমাকৃত সমুদয় টাকা ফেরৎ দেয়া হয়। মেয়াদ শেষে পুনরায় পলিসি গ্রহণের সুযোগ রয়েছে।

 

শিক্ষাসেবাঃ

 

 

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিম্নবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের অধ্যায়নরত ছাত্র/ছাত্রীদের বাড়ীতে প্রয়োজনীয় শিক্ষা নির্দেশনা ও সহায়তা প্রদানের জন্যে সম সাধারণতঃ কেউ নেই। কারণ অধিকাংশ পিতা-মাতাই নিরর কিংবা পর্যাপ্ত সময়ের অভাব অথবা সারাদিনের খাঁটুনির পর শারীরিক ও মানসিক ক্লান্তিজনিত কারণে তারা তাদের  সন্তানদের প্রয়োজনীয় শিক্ষা সহায়তা দিতে পারেনা। অপরদিকে আর্থিক অসামর্থের কারণে গৃহ শিক নিয়োগ করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। এর ফলশ্রতিতে নিম্ন বা নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের পড়য়াগণ বিদ্যালয়ে গিয়ে নিজেদের পাঠ উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হয় এবং শিকের দ্বারা তিরস্কৃত ও অন্যান্য সহপাঠীদের চোখে হেয় প্রতিপন্ন হয়। এভাবে এক পর্যায়ে স্কুলে যাওয়া থেকে বিরত থাকে এবং শিক্ষা জীবনের সমাপ্তি ঘটায়।প্রাথমিক পর্যায়ে অধ্যায়নরত এই নিম্ন ও নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণীর ছাত্র/ছাত্রীদের এভাবে ঝরে পড়া হ্রাস করা যেতে পারে-যদি তাদেরকে পড়া আয়ত্ব করার জন্যে বাড়ীতে প্রয়োজনীয় শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা যায়। এ প্রেক্ষাপটে এই বিশেষ শ্রেণীর ছাত্র/ছাত্রীদেরকে শিক্ষা সহায়তা প্রদানের প্রয়োজনীয়তা অনুভূত হওয়ায় সম্পুর্ন নিজ¯^ অর্থায়নে আশাপ্রাথমিক শিক্ষা শক্তিশালীকরণ কর্মসূচী চালু করেছে। প্রাথমিক ভাবে প্রতিটি জেলার একটি করে ব্রাঞ্চে ১৫টি শিক্ষা কেন্দ্রের প্রতিটিতে ২৫-৩০ জন শিশু  ১ম ও ২য় শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে শিক্ষা সেবিকার দ্বারা পাঠ আয়ত্ব করনে সহায়তা কার্যক্রম চলছে। প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের স্কুল সময় সূচীর আগে/পরে সুবিধাজনক সময়ে ২ ঘন্টা সেবিকার দ্বারা এই কার্যক্রম চলছে। ১ জন শিক্ষা সুপার ভাইজার সেবিকাদের সার্বিক সহায়তা দান সহ কার্যক্রম তদারক করেন। অত্র লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার চামটারহাট  ও হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা ব্রাঞ্চে এই কার্যক্রম চলছে। 

 

 

প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা:

 

 

(ক) সদস্য চিকিৎসা সহায়তা তহবিল:আশা আয় থেকে যাবতীয় ব্যয় নির্বাহের পর উদ্বৃত্ত আয় দ্বারা সদস্য কল্যাণ তহবিল গঠন করেছে। এই তহবিল থেকে আশার উপকারভোগী সদস্যদের মাঝে সুনির্দিষ্ট কয়েকটি ছোট বড়, জটিল অপারেশন/চিকিৎসার ক্ষেত্রে দুই ধরনের বরাদ্দ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। যার একটি-

(১) ব্রাঞ্চের বরাদ্দ হতে সরাসরি ব্রাঞ্চ ম্যানেজারের অনুমোদনে সিজারিয়ান ডেলিভারি, ব্রেষ্ট ক্যান্সার, ইউটেরাস অপারেশন, চক্ষুর ছানি অপারেশন, যে কোন ধরনের ছোট খাটো হাড়ের অপারেশন।

(২) কেন্দ্রীয় কার্যালয় কর্তৃক অনুমোদিত বছর ভিত্তিক জেলা সংখ্যার অনুপাতে থোক বরাদ্দ থেকে জেলা কর্মকর্তার অনুমোদনে ক্যান্সার (বাড, ফুসফুস, হাড়, পাকস্থলি, গলা), অন্যান্য ক্যান্সার, এসিড সহায়তা, ব্রেইন টিউমার/রক্তরণ, ষ্টোন অপসারণ, কিডানড্যামেজ/ট্রান্সপ্লান্ট, হার্ট অপারেশন (ভাল্ব পরিবর্তন, রিপেয়ার, বাইপাস), মেরদন্ড অপারেশন ও অর্থোপেডিক চিকিৎসার ক্ষেত্রে হাঁটুর প্যাটেলা পরিবর্তন সহ অন্যান্য অপারেশন। বছর ভিত্তিক বরাদ্দ থাকা সাপেক্ষেআগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে, সংস্থায় সদস্য পদের বয়স নুন্যতম ২ বছর থেকে তদুর্ধ্বদের আনুপাতিক হারে অনুদান দেয়া হয়ে থাকে। 

 

(খ) আশাস্বাস্থ্য সচেতনতা কর্মসূচীঃদরিদ্র সুবিধা বঞ্চিত সদস্যাদের স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক তথ্য প্রদানের লক্ষ্যে আশা স্বাস্থ্য সচেতনতামূলককর্মসূচীগ্রহণ করেছে। যা জুন'১২ হতে বা¯—বায়ন হচ্ছে। আর্থ সামাজিকউন্নয়নের জন্য রোগহীন সু-স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। সমাজের পিছিয়ে পড়া ও অসচেতন মহিলা-পুরষদেরকে তাদের স্বাস্থ্য অধিকার সš^ন্ধে জানানো ও স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করার জন্য উদ্বুদ্ধ করা। এই প্রেক্ষাপটে সংস্থার সদস্য ও তার পরিবারের অভ্যাসগত পরিবর্তন ও প্রতিরোধযোগ্য রোগ বালাই বিষয়ক তথ্য আদান প্রদান ও সচেতনতা বৃদ্ধি করে এবং তার যথার্থ ব্যবহার ও মনিটরিংয়ের দায়িত্ব নিয়ে সুবিধা বঞ্চিত বিরাট জনগোষ্ঠির সু-স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তাদের আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটাতে আশা বদ্ধ পরিকর। প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে সচেতনতামূলক একটি ইস্যু সকল দলে আলোচনা করা হয়। অর্থাৎ শনি, রবি, সোম, মংগল, বুধ ও বৃহস্পতিবার পর্যায়ক্রমে ৬দিন একই ইস্যু নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়, যেমন-শনিবার একজন কর্মীর যে কয়টি দল থাকবে তার সকল দলে, ঠিক প্রতিদন একইভাবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রতিটি দলে একই ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেন। দেশব্যাপী আশার সকল দলে সংস্থার লোন অফিসার দ্বারা এই কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। আলোচনার পাশাপাশি প্রযোজ্য ক্ষেত্রেকর্মীগণ Demonstrationকরে দেখিয়ে দিবেন।

 

আলোচ্যসূচী নিম্নরূপঃ  

(১) ব্যক্তিগত পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও তার প্রয়োজনীয়তা

(২) নিরাপদ পানি ব্যবহার ও তার প্রয়োজনীয়তা এবং আর্সেনিক দূষণ প্রতিরোধ।

(৩) হাত ধোয়ার মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ।

(৪) স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার ও তার পরে সাবান দিয়ে হাত ধোয়া।

(৫) বাড়ীর আশপাশ পরিস্কার রাখা ও তার প্রয়োজনীয়তা।

(৬) মশা-মাছিবাহিত রোগ ও তার প্রতিরোধ।

(৭) সুষম খাদ্য, পুষ্টি ও পুষ্টিহীনতার প্রতিকার।

(৮) ডাইরিয়া ওপানিবাহিত রোগ এবং তার প্রতিরোধের উপায়।

(৯) কৃমি ও তার প্রতিকার।

(১০) নবজাতক ও শিশুর যত্ন।

(১১) শিশু খাদ্য, শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ।

(১২) রক্ত স্বপ্লতা ও এর প্রতিরোধের উপায়।

 

 

 

 

এ ধারা অব্যাহত থাকবে

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

চিত্র: দলীয় সভায় আশা'র সদস্যগণ স্বাস্থ্য সচেনতনতা মূলক আলোচনা করছে।

 

আশার সহযোগিতায় কাকিনা পল্লীস্বাস্থ্য কেন্দ্রে স্বাস্থ্য সেবা : অত্র লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের কাকিনা বাজারে অবস্থিত ড. মোজাম্মেল হক কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত কাকিনা পল্লীস্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে অধিকতর সেবা প্রদানের লক্ষ্যে কাকিনা ‌পল্লী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ‌‌আশা থেকে সার্বক্ষনিক একজন ডাক্তারের সম্মানী দেয়া হচ্ছে। সেখান থেকে নামমাত্র ২০/- সম্মানীতে এলাকার মানুষ চিকিৎসার সুযোগ পাচ্ছে। হ্রাসকৃত মূল্যে ঔষধ দেয়ারও ব্যবস্থা আছে।

 

** ফরেন রেমিটেন্স সার্ভিসঃবিদেশে অবস্থানকারীদের প্রেরিত টাকা খুব সহজে দ্রুত সময়ে ন্যাশনাল ব্যাংক লিঃ ও ওয়ের্স্টান ইউনিয়ন এর মাধ্যমে বাংলাদেরশের গ্রাহকদের হাতে তুলে দেয়া হয়। আশা লালমনিরহাট জেলায় ১1টি ব্রাঞ্চের মাধ্যমে এ সেবা দেয়া হচ্ছে। এই ১১ টি ব্রাঞ্চ হলো :(১) লালমনিরহাট সদর-০১, (২) বড়বাড়ী, (৩) আদিতমারী (৪) ভেলাবাড়ী, (৫) কাকিনা, (৬) তুষভান্ডার, (৭) ভোটমারী, (৮) হাতীবান্ধা-০১, (৯) পাটগ্রাম-০১, (১০) বুড়িমারী ব্রাঞ্চ, (১১) কালীগঞ্জ।

 

** আশা ইউনিভার্সিটিঃ২৩ অক্টোবর২০০৬ইং সালে অনুমোদন প্রাপ্ত হয়ে আশা ইউনিভার্সিটির কার্যক্রম চলমান আছে। আশা ইউনির্ভাসিটি উচ্চ শিক্ষার আদর্শ প্রতিষ্ঠান হিসাবে অবস্থান সুসংহত করতে সক্ষম হয়েছে। আশা টাওয়ারে ইউনিভার্সিটির কার্যক্রম চলমান আছে। ইতিমধ্যেই প্রতিষ্ঠানটি মধ্যবিত্ত ও সীমিত আয়ের পরিবারের শিক্ষার্থীদের অন্যতম পছন্দের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। আশার সদস্য পরিবারের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সুবিধা আছে। তথ্যের জন্যweb: www.asaub.edu.bd

 

**Hope for the Poorest (HP)t

**  এটি একটি সামাজিক উন্নয়নমূলক অলাভজনক সংস্থা, যা আশারসহযোগী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের দরিদ্র মানুষের কাছে চিকিৎসা সেবা, বিশুদ্ধ পানি ও নিরাপদ সেনিটেশন সেবা সহজে পৌঁছে দেয়ার লক্ষে যেHP KvR Ki‡Q| D³ cÖwZôv‡bi gva¨‡g B‡Zvg‡a¨ nweMÄ †Rjvi Pzbvi“Nv‡U GKwU 50 kh¨v wewkó AZ¨vaywbK Health Complex চালু করা হয়েছে এবং গাইবান্ধা, ব্রাহ্মনবাড়িয়া, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরায় মোট ৪টি স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। এ ছাড়াও নেদারল্যান্ডস ভিত্তিক সংস্থাWASTE এর আর্থিক সহায়তায়  BangladeshWASH Alliance এর সাথেHP যৌথভাবেWater, Sanitation & Hygiene নিয়ে দেশের উপক‚লীয় অঞ্চল বাগেরহাট ও সাতক্ষীরায় কাজ করছে।

-ধন্যবাদ-

সংযুক্তি

NGO Asa.doc NGO Asa.doc
ASA NGO Profile-updt Unicod.doc ASA NGO Profile-updt Unicod.doc